বাহারছড়ায় ভোগ-দখলীয় জমি জবরদখলের অভিযোগ; প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা

58

বিশেষ প্রতিবেদক :

টেকনাফের উপকূলীয় ইউনিয়ন বাহারছড়ায় এক ব্যক্তির দীর্ঘদিনের ভোগ-দখলীয় জমি স্থানীয় প্রভাবশালী ভূমিদস্যু চক্র রাতের অন্ধকারে ঘর তৈরী করে জবর-দখলে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। ভূক্তভোগী পরিবার তাদের জমি ফিরে পেতে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
গত ২৪এপ্রিল টেকনাফ মডেল থানায় দায়েরকৃত অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, গত ১৮এপ্রিল রাত ১২টারদিকে টেকনাফ বাহারছড়ার শামলাপুর পুরান পাড়ার মৃত আমির হামজার পুত্র মোক্তার আহমদ (৪৫) এর নেতৃত্বে মৃত আব্দুল হকের পুত্র মোঃ রাসেল (২৮), জিয়াউল হক (৩০), জাহাঙ্গীর (২৬), মোস্তাফিজুর রহমান (৪৮), মৃত আব্দুল মোনাফের পুত্র আবু ছিদ্দিক (৪৫), লুৎফর রহমানের স্ত্রী রাশেদা (২৩) এবং মোঃ রাসেলের স্ত্রী শাহেদা বেগম (২২) সহ আরো ৮/১০জনের লাঠি-সোটা ও দা-কিরিচ নিয়ে একটি স্বশস্ত্র গ্রæপ এসে স্থানীয় মৃত সোলতান আহমদের পুত্র হাজী আব্দুল মোতালেব এবং স্ত্রী নুর আয়েশার নামীয় খতিয়ান নং-১/৪৮ এর বিএস দাগ-১৬০৯ বন্দোবস্তি মামলা নং-০৩/১৯৯৮-৯৯ইং এবং নামজারী ও জমাভাগ মামলা নং-১০৭২/২০০৭-০৮ইং এর ২১/০৪/২০০৮ইং তারিখের আদেশমতে সৃজিত নামজারী খতিয়ানভূক্ত ২১শতক জমি গত ৪২বছর ধরে চাষাবাদ করে ভোগ-দখলীয় জমিতে বাঁশের ঘর তৈরী করে জবর-দখলে নেয়। পরদিন খবর পেয়ে হাজী আব্দুল মতলব ও ছেলে মোঃ তৈয়ব ঘটনাস্থলে গেলে জবর-দখলকারীরা হামলা করার জন্য এগিয়ে আসে। তখন বিষয়টি স্থানীয় ইউপি মেম্বারকে অবহিত করা হলে চৌকিদার মাধ্যমে তাদের ডাকা হয়। তারা সালিশে সময়ের আবেদন করেন। পরবর্তী বিচারে তারা সালিশ না মেনে উল্টো মেম্বারকে গালমন্দ করার পর জমির মালিককে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চলে যায়।
তাই জমির মালিক রক্তপাতহীন শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নিজের ভোগ-দখলীয় উদ্ধারের জন্য টেকনাফ মডেল থানায় উপরোক্তদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে বিষয়টি তদন্ত স্বাপেক্ষে পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়।
ভূক্তভোগী পরিবার বেদখল হয়ে যাওয়া জমি উদ্ধার করে ফেরত দিতে এলাকার জনপ্রতিনিধি, আইন-শৃংখলা বাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট মহলের সকলের আন্তরিক সহায়তা কামনা করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here