রোহিঙ্গাদের নিয়ে ভাসানচরের পথে ২০ বাস

122

আব্দুর রহমান, টেকনাফ:

কক্সবাজারের উখিয়া থেকে রোহিঙ্গাদের নিয়ে ২০টি বাস ভাসানচরের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে উখিয়া কলেজের অস্থায়ী ট্রানজিট ঘাট থেকে রোহিঙ্গাদের নিয়ে বাসগুলো চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। শুক্রবার নৌবাহিনীর তত্ত্বাবধানে এই রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে নেওয়া হবে।

এর আগে সকালে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নসহ (এপিবিএ) আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের নিরাপত্তায় স্বেচ্ছায় ভাসানচরে যেতে আগ্রহী রোহিঙ্গারা কক্সবাজারের বিভিন্ন ক্যাম্প থেকে উখিয়া কলেজ ট্রানজিট ঘাটে জমা হয়। সেখানে তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষাসহ প্রয়োজনীয় সব পরীক্ষা হয়। পরে তাদের নিয়ে রওনা হয় বাসগুলো।

এপিবিএনের অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক মোশারফ হোসেন বলেন, ‘স্বেচ্ছায় ভাসানচরে যেতে আগ্রহী রোহিঙ্গাদের একটি দল নিয়ে প্রথম ২০টি বাস বৃহস্পতিবার সকালে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে। সেখান থেকে শুক্রবার সকালে নৌ-বাহিনীর তত্ত্বাবধানে তাদের ভাসানচরে নিয়ে যাওয়া হবে। এই দলে আড়াই হাজার রোহিঙ্গার ভাসানচরে যাওয়ার কথা রয়েছে। আমারা ভাসানচরে সেভাবেই প্রস্তুতি নিয়েছি।’

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ১২০টি ক্লাস্টার নিয়ে তৈরি ভাসানচর এক লাখ মানুষের আবাসনের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত। রোহিঙ্গা শরণার্থী ছাড়াও এখানে এনজিও কর্মকর্তা, দূতাবাসের কর্মকর্তা, উচ্চপদস্থ ব্যক্তিদের জন্য উন্নত ও আধুনিক ভবন নির্মাণ করা হয়েছে।

এর আগে সকালে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নসহ (এপিবিএ) আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের নিরাপত্তায় স্বেচ্ছায় ভাসানচরে যেতে আগ্রহী রোহিঙ্গারা কক্সবাজারের বিভিন্ন ক্যাম্প থেকে উখিয়া কলেজ ট্রানজিট ঘাটে জমা হয়। সেখানে তাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষাসহ প্রয়োজনীয় সব পরীক্ষা হয়। পরে তাদের নিয়ে রওনা হয় বাসগুলো।

এপিবিএনের অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক মোশারফ হোসেন বলেন, ‘স্বেচ্ছায় ভাসানচরে যেতে আগ্রহী রোহিঙ্গাদের একটি দল নিয়ে প্রথম ২০টি বাস বৃহস্পতিবার সকালে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে। সেখান থেকে শুক্রবার সকালে নৌ-বাহিনীর তত্ত্বাবধানে তাদের ভাসানচরে নিয়ে যাওয়া হবে। এই দলে আড়াই হাজার রোহিঙ্গার ভাসানচরে যাওয়ার কথা রয়েছে। আমারা ভাসানচরে সেভাবেই প্রস্তুতি নিয়েছি।’

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ১২০টি ক্লাস্টার নিয়ে তৈরি ভাসানচর এক লাখ মানুষের আবাসনের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত। রোহিঙ্গা শরণার্থী ছাড়াও এখানে এনজিও কর্মকর্তা, দূতাবাসের কর্মকর্তা, উচ্চপদস্থ ব্যক্তিদের জন্য উন্নত ও আধুনিক ভবন নির্মাণ করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here