ধর্ষণ ফোবিয়ায় সরগরম স্বদেশ!

179

গা গিনগিন করে, ভয়ে আতঁকে উঠি, বিস্ময়ে বিহ্বল হয়ে পড়ি যখন শুনি আমার পাশের মানুষরূপী অমানুষটি ছোট্টো ছোট্টো অবুঝ শিশুর উপর নির্মম পাশবিক অত্যাচার চালায়, ছুরি দিয়ে যৌনাঙ্গ কেটে পৈশাচিক আনন্দ লাভ করে। চমকে উঠাই স্বাভাবিক যখন ডাক্তাররা বলেন, আমরা নিজেরাই স্বাভাবিক থাকতে পারছিনা এমন দৃশ্য দেখে। এরকম ভয়াবহতম নিষ্ঠুরতার শিকার হওয়া পেশেন্ট আমাদের এখানে এই প্রথম। নিত্যকার নতুন আঙ্গিকে নতুন ধাঁচে ধর্ষণের খবর বেরুচ্ছে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে। মহামারির চেয়ে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে ধর্ষণ ব্যারাম। ৫ বছরের শিশু থেকে শুরু করে অশীতিপর বৃদ্ধাও কেউ নিরাপদ নন এ কালো থাবা থেকে। আপনি কার কাছে নিরাপদ বলুন। স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, মসজিদের ইমাম মোয়াজ্জেম চাচা, খালু, ফুফা, ভাইপো কারো কাছে আপনি নিরাপদ থাকতে পারছেন না। এ কেমন অসুস্থ সমাজব্যবস্থা। এ কেমন অসুস্থ আনন্দোৎসব!
প্রতিদিনকার খবরেরকাগজ ভরে যাচছে ধর্ষকের যৎসামান্য প্রকাশিত দৌরাত্ম্যে। কতোশতো অপ্রকাশ্য ধর্ষক আমাদের সহনীয় সমাজব্যবস্থায় বীরদর্পে ঘুরেবেড়ায় তার হিসাব কী রাষ্ট্রযন্ত্র রাখেন! সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড, দ্রুত আইনে বিচার, রাসায়নিক প্রক্রিয়ায় ধর্ষকের নপুংসকতা ইত্যাদির ফিরিস্তি সরকারের তরফ থেকে আওড়ানো হলেও এরপরও মানুষ ভীতসন্ত্রস্ত। বিচার বিভাগের কচ্ছপ গতি কিংবা ম্যানিপুলিটেড হবার নজির এদেশে ভুরিভুরি। তাই ভয়ের কারণটা বেশি।
গোড়ায় কুঠারাঘাত করুন, সজোরে চপেটাঘাত করুন ঘুণেধরা সমাজব্যবস্থায়, নৈতিকতা, মূল্যবোধ ও সুশাসন ছড়িয়ে দিন অমানবিকতার পরতে পরতে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here